টাঙ্গাইল ০৭:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ খবর :
নানার বাড়ি বেড়াতে এসে  নদীতে গোছল করতে নেমে মাদ্রাসার ছাত্র  নিখোঁজ  কালিহাতীতে নববর্ষ উপলক্ষে শুভেচ্ছা বিনিময় ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কালিহাতী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মোঃ মোখলেছুর রহমান পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কালিহাতী  উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী  মোঃ আব্দুল বারেক সরকার  কালিহাতী রিপোর্টার্স ইউনিটির ইফতার ও পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মো: শরিফুল ইসলাম পেঁয়াজের৷দাম ধ্বংস হচ্ছে কালিহাতীর গ্রামীণ জনপদ : ‘সিন্ডিকেটে’ চলছে বালুর ব্যবসা কালিহাতীতে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও স্থানীয়দের সাথে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর মতবিনিময় আবার ধর্ষণের অভিযোগ বড় মনিরের বিরুদ্ধে !
ব্রেকিং নিউজ :

কালিহাতীতে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে রহস্য ! | ৮/৩/২০২৪

মো: নাহিদ খান
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ৮ মার্চ ২০২৪
  • / ১৭০ বার পড়া হয়েছে

কালিহাতীতে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে রহস্য !

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে এক গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। শুক্রবার (৮ মার্চ) সকালে উপজেলার বীরবাসিন্দা ইউনিয়নের রাজাফৈর গ্রামে নিজ বাড়ীর পাশে একটি জামগাছে ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূ মিনা আক্তারের (২২) মরদেহ উদ্ধার করে কালিহাতী থানা পুলিশ।

মিনা আক্তার একই এলাকার সৌদি প্রবাসী আয়নাল হকের স্ত্রী ও কালিহাতী পৌর এলাকার চামুরিয়া গ্রামের আব্দুল হালিমের মেয়ে।

নিহত গৃহবধূ মিনা আক্তারের স্বজনেরা জানান, বাবা-মা ও ভাইদের কথায় আয়নাল আমার মেয়েকে ঠিক মতোন ভরণ-পোষণ করত না। এ নিয়ে মাঝে মধ্যেই ঝগড়া হতো। গত তিনদিন যাবত ঝগড়া চলছিলো। শ্বাশুড়ি ও ভাসুর মিলে মিনাকে প্রচুর পিটিয়ে প্রাণে মেরে ফেলে। পরে তারা গাছে ঝুলিয়ে রাখে। দুই ভাসুরের পরিবার ও শ্বাশুড়ি বাড়িতে না থাকায় ও মুঠোফোন বন্ধ থাকায় অভিযোগের বিষয়ে তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

স্থানীয়রা জানায়, নিহতের স্বামী আয়নাল হক ও তাঁর আরেক ভাই আলমগীর প্রবাসী। অপর আরেক ভাই উজ¦ল স্বপরিবারে বাড়িতেই থাকেন। এক বোন স্বামী-সন্তান নিয়ে বাবার বাড়িতেই থাকেন। আয়নাল হক এর আগেও আরেকটি বিয়ে করেছিলো। শ্বশুর-শ্বাশুড়ি, ভাসুর অত্যাচারে প্রথম স্ত্রী চলে যায়। ছয় বছর আগে মিনাকে বিয়ে করেন আয়নাল। এরপর সে প্রবাসে চলে যায়। তাঁদের ঘরে পাঁচ বছরের একটি মেয়ে সন্তানও রয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কালিহাতী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আল মামুন জানান, মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। এবিষয়ে অপমৃত্যু মামলা প্রক্রিয়াধীন। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ট্যাগস :

নিউজটি শেয়ার করুন

কালিহাতীতে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে রহস্য ! | ৮/৩/২০২৪

প্রকাশিত : শুক্রবার, ৮ মার্চ ২০২৪

কালিহাতীতে গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে রহস্য !

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে এক গৃহবধূর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে। শুক্রবার (৮ মার্চ) সকালে উপজেলার বীরবাসিন্দা ইউনিয়নের রাজাফৈর গ্রামে নিজ বাড়ীর পাশে একটি জামগাছে ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূ মিনা আক্তারের (২২) মরদেহ উদ্ধার করে কালিহাতী থানা পুলিশ।

মিনা আক্তার একই এলাকার সৌদি প্রবাসী আয়নাল হকের স্ত্রী ও কালিহাতী পৌর এলাকার চামুরিয়া গ্রামের আব্দুল হালিমের মেয়ে।

নিহত গৃহবধূ মিনা আক্তারের স্বজনেরা জানান, বাবা-মা ও ভাইদের কথায় আয়নাল আমার মেয়েকে ঠিক মতোন ভরণ-পোষণ করত না। এ নিয়ে মাঝে মধ্যেই ঝগড়া হতো। গত তিনদিন যাবত ঝগড়া চলছিলো। শ্বাশুড়ি ও ভাসুর মিলে মিনাকে প্রচুর পিটিয়ে প্রাণে মেরে ফেলে। পরে তারা গাছে ঝুলিয়ে রাখে। দুই ভাসুরের পরিবার ও শ্বাশুড়ি বাড়িতে না থাকায় ও মুঠোফোন বন্ধ থাকায় অভিযোগের বিষয়ে তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

স্থানীয়রা জানায়, নিহতের স্বামী আয়নাল হক ও তাঁর আরেক ভাই আলমগীর প্রবাসী। অপর আরেক ভাই উজ¦ল স্বপরিবারে বাড়িতেই থাকেন। এক বোন স্বামী-সন্তান নিয়ে বাবার বাড়িতেই থাকেন। আয়নাল হক এর আগেও আরেকটি বিয়ে করেছিলো। শ্বশুর-শ্বাশুড়ি, ভাসুর অত্যাচারে প্রথম স্ত্রী চলে যায়। ছয় বছর আগে মিনাকে বিয়ে করেন আয়নাল। এরপর সে প্রবাসে চলে যায়। তাঁদের ঘরে পাঁচ বছরের একটি মেয়ে সন্তানও রয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কালিহাতী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আল মামুন জানান, মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। এবিষয়ে অপমৃত্যু মামলা প্রক্রিয়াধীন। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।